আমাদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করবেন না, আমরা মরি তবুও লড়ি : মমতা

Bangla Radio 24 views
ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারে ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতাদের নিশানা করে বলেছেন, আমাদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করবেন না, আমরা মরি, তবুও লড়ি। তিনি আজ (বৃহস্পতিবার) কোলকাতা নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে দলীয় এক সমাবেশে বক্তব্য রাখার সময়ে ওই মন্তব্য করেন।

মমতা বলেন, ‘আমাদের একটাই স্লোগান, এজেন্সি চাই না, চাকরি চাই।  আমাদের প্রবণতা হল কর্মসংস্থান, আর ওদের হচ্ছে কর্মসংকোচন। ওরা কর্মটাকে ছোট করে দিচ্ছে। আমাদের দেশের প্রায় চার লক্ষ ব্যবসায়ী,  শিল্পপতি বাইরের দেশে চলে গেছে। যে ক’জন শিল্পপতি আছে, তাদের সবার বাড়িতে এজেন্সি পাঠিয়ে দিচ্ছে, কারও বাড়ি ইনকাম ট্যাক্স, কারও বাড়িতে  সিবিআই, কারও বাড়িতে ‘ইডি’! নিজেদের বাড়িতে কী পাঠাবে, বাকি আর কী থাকবে? নিজেরা যাওয়ার সময় সব তো নিয়ে চলে যাবে। ও তো আগেই পাঠিয়ে দিচ্ছে।’     

মমতা বলেন, ‘লক্ষ-লক্ষ কোটি টাকা তো ‘পিএম কেয়ার’-এ  উঠল, সে টাকা কোথায় গেল? সব পাঠিয়ে দিয়েছে বিদেশে। দেশটাকেও বিক্রি করে দিয়ে সে টাকা নিয়ে পালাবে। আপনার, আমার কী হবে? দু’দিন বাদে ব্যাংকও বন্ধ করে দেবে, ব্যাংকের টাকাও পাবেন না। এই অবস্থায় একমাত্র কাজ হচ্ছে আমাদের, লড়াই-লড়াই-লড়াই। ‘লড়াই-লড়াই-লড়াই চাই, লড়াই করে বাঁচতে চাই’। বিজেপি, আমরা সিপিএমের ৩৪ বছরের লড়াই দেখেছি।  আমাদের ভয় দেখানোর চেষ্টা করবে না। আমরা মরি, তবুও করি। আমরা মরি, তবুও লড়ি। আমরা মরি তবুও আমরা মাথা বিকিয়ে দিই না। আমাদের সাথে যত লড়বে, আমাদের শক্তি তত বাড়বে। আমাদের যত অত্যাচার করবে, আমাদের ক্ষমতা তত বাড়বে।’    

মমতা আজ ফের তার ‘খেলা হবে’ স্লোগান দিয়ে কর্মী-সমর্থকদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা করেন। এ সময়ে তিনি আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে  উচিত জবাব দেওয়ার কথা বলেন। তিনি  বিজেপিকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘২০২৪ সালে এমন খেলা খেলব, ওরা গর্ব করে বেড়াচ্ছে তো, রাজীব গান্ধীর সময়ে ৪০০ এমপি ছিল তাও ধরে রাখতে পারেনি। আর এদের তিনশ’র  কাছাকাছি আছে তো, এই যে পাঁচটা রাজ্যের কথা বললাম,  এখানেই ১০০ টা হ্যাচাং ফুঁ হয়ে যাবে!  কোথা থেকে গড়বে সরকার?’

‘আর নেই দরকার, বিজেপি সরকার’ বলেও মমতা আজ স্লোগান দেন। এবং আমরা চাই, মানুষের সরকার  হোক’ বলেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন। 

Related

Add Comments